হিস্টোরি অব ম্যানচেস্টার ডার্বি

"On derby day in Manchester, the city is cut in two.The Blues and the Reds invade the streets and if your team wins, the city belongs to you"- Eric Cantona এরিক কান্টোনার এই উক্তিই সম্ভবত জানিয়ে দেয় ম্যানচেস্টার ডার্বির মাহাত্ম্য। তা কেমন ছিলো ঐ সময়ের ম্যানচেস্টার এর ইতিহাস? ডার্বির গল্পটা শুরু হয় ১৮৮১

দ্যা সিক্স ডেভিলস – দ্যা ক্লাস অফ ৯২

ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড ক্লাবটার রেকর্ডটা খুব খারাপ না, কি বলুন? এইতো, ২০টা প্রিমিয়ার লীগ আর ৩টা চ্যাম্পিয়নস লীগ। এর পাশাপাশি অবশ্য আরেকটা জিনিস আছে ম্যানচেষ্টারের লাল অংশের। একটা দুর্দান্ত একাডেমী। হালের প্রিমিয়ার লীগের সবচেয়ে দামী খেলোয়াড় পল পগবা এই একাডেমীরই আবিষ্কার। যাই হোক, ক্যাপশন দেখে হয়ত ভাবছেন, ক্লাস আবার একাডেমীর কেমনে হয়? ক্লাস

ইংলিশ লীগের কিংবদন্তিরা – আজকের কিংবদন্তি “ইলিশা স্কট”

"ইলিশা স্কট" লিভারপুল ক্লাবের কিংবদন্তি ফুটবল যিনি লিভারপুল সমর্থকদের মনে স্থায়ীভাবে জায়গা দখল করে নিয়েছেন। এখন পর্যন্ত লিভারপুলে সবচেয়ে দীর্ঘ সময় ধরে খেলা খেলোয়ার হলেন স্কট (১৯১৩-১৯৩৪)। আইরিশ পল স্কট লিভারপুলের ইতিহাসের সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ গোলরক্ষক । বেলফাস্টে জন্মগ্রহণ করা স্কট আন্তর্জাতিক এবং ক্লাব পর্যায়ে প্রায় ৫০০টি ম্যাচ খেলেছেন। লিভারপুলে যখন যোগদান করেন

অনন্য উচ্চতার মহানায়ক কালো মানিক

পেলের এক্সক্লুসিভ সাক্ষাৎকার!

উইলিয়াম শেক্সপিয়ারকে বলা হয় বিশ্বের সেরা ট্র্যাজিক গল্পের লেখক। নিজের কলমের গাথুঁনিতে কি করেননি তিনি? রোমিও জুলিয়েটের পর্যন্ত নির্মম পরিণতি ঘটিয়েছেন। এতো বড় ট্র্যাজেডির লেখক কি স্বপ্নেও ভেবেছিলেন তার লেখা ট্র্যাজিক গল্প গুলো থেকেও বড় ট্র্যাজেডির রচনা হবে মারাকানা নামক এক ফুটবল মাঠে। হ্যা,  ঠিকই শুনেছেন মারাকানার মাঠে সেদিন রচনা

অলিভার কানঃ দ্যা টাইটান 

জুন ৩০, ২০০২। জাপানের ইন্টারন্যাশনাল স্টেডিয়াম ইয়োকোহামাতে বিশ্ব শ্রেষ্ঠত্বের লড়াইয়ে মুখোমুখি ব্রাজিল এবং জার্মানি। ম্যাচের শুরু থেকেই রোনালদিনহো, রিভালদো, রবার্তো কার্লোস, কাফু, রোনালদো লিমাদের ব্রাজিল একের পর এক আক্রমণে ব্যতিব্যস্ত করে রাখছিল জার্মান রক্ষণভাগকে। কিন্তু জার্মান রক্ষণভাগে চির ধরালেও জার্মান গোলকিপার দেওয়ালে বার বার বাধা পেয়ে ফিরে আসছিল ব্রাজিলের সম্ভাবনাময় আক্রমণগুলো।